• বুধবার   ২৩ জুন ২০২১ ||

  • আষাঢ় ৯ ১৪২৮

  • || ১২ জ্বিলকদ ১৪৪২

সর্বশেষ:
আজ ২৩ জুন এ দেশের বৃহত্তম ও প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী।

ঈদেও উদাসীন বিএনপি, হতাশ নেতারা 

প্রকাশিত: ১৫ মে ২০২১  

সারাবিশ্বের মতো বাংলাদেশেও চলছে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব। এ পরিস্থিতিতে তৃণমূল নেতাকর্মীদের প্রতি উদাসীন ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা। এবার ঈদুল ফিতরেও উদাসীনতা দেখিয়েছেন নেতারা। এতে কেন্দ্রের প্রতি হতাশ তৃণমূল নেতাকর্মীরা।
সূত্র জানায়, বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। আর দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান লন্ডনে পলাতক। দীর্ঘদিন ধরে সেখানে বসে মনোনয়ন বাণিজ্য করছেন তিনি। কিন্তু তারেক রহমানসহ বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা করোনার সর্বোচ্চ রেকর্ড শনাক্ত ও মৃত্যুর সময় তৃণমূল নেতাকর্মীদের খোঁজ করেননি। সারা বছরে একটি ঈদ এসেছে। এ ঈদেও তৃণমূল নেতাদের কোনো ঈদ উপহার প্রদান করা হয়নি। কর্মীদের সাহায্য ও সহযোগিতা করা তো অনেক দূরে।

সূত্র জানায়, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বিএনপির শীর্ষ নেতারা নিজেদের এলাকায় যাননি। এর ফলে দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় হচ্ছে না। এতে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মাঝে হতাশা সৃষ্টি হয়েছে।

আরেকটি সূত্র জানায়, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ঢাকাতেই ঈদ করছেন। ফলে তার এলাকার তৃণমূল নেতাকর্মীরা হতাশ হয়েছেন।

এদিকে এতিমের অর্থ আত্মসাতের মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া সাজা পাওয়ার পর তৃণমূলের নেতারা চরম অবহেলার শিকার হতে শুরু করেন। সেই অবহেলার মাত্রা দিন দিন বাড়ছে। যার প্রভাব এবারের ঈদুল ফিতরেও দেখা গেলো।

বিএনপির তৃণমূলের নেতারা বলেন, করোনাভাইরাস পরিস্থিতির সময় কেন্দ্রের নেতারা আমাদের খোঁজ নেয়ার প্রয়োজন মনে করেননি। এখন ঈদের সময় আমাদের কাছে কোনো উপহার বা অর্থ পাঠাননি। আমরা কর্মীদের উপহার না দিতে পারায় লজ্জিত। এছাড়া কেন্দ্রীয় নেতারা এলাকায় আসেননি। এতে আমাদের ওপর কর্মীদের আস্থা কমবে। এসব কষ্ট আসলে কারো কাছে বলার মতো নেই।

জানতে চাইলে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, এবার ঈদ বলতে কিছু নেই। গত ৩১ মার্চ হতে করোনা আক্রান্ত হয়ে সস্ত্রীক হাসপাতালে ছিলাম। ১৩ এপ্রিল করোনামুক্ত হয়ে বাসায় ফিরে বেড রেস্ট নিচ্ছি। এবার ঈদে নিজ গ্রাম বা অন্য কোথাও যাওয়ার কর্মসূচি নেই। 

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলেন, বিএনপির শীর্ষ নেতারা বেশিরভাগই সুবিধাভোগী। তারা তাদের ব্যক্তিগত ব্যবসা-বাণিজ্য নিয়েই ব্যস্ত। করোনা পরিস্থিতিতে দেশের মানুষ ও দলের অসহায় নেতাকর্মীদের পাশে সত্যিকার অর্থে দাঁড়িয়েছে আওয়ামী লীগ। এ পরিস্থিতিতে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা অসহায় ও দরিদ্র নেতাকর্মীদের খবর নেননি। যখন আওয়ামী লীগ দেশের মানুষকে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করেছে তখন কর্মীদের উপহার দেয়া তো দূরের কথা, বিএনপির নেতারা তাদের খোঁজ পর্যন্ত নেননি।

– দিনাজপুর দর্পণ নিউজ ডেস্ক –