ব্রেকিং:
রংপুরের নবীগঞ্জ এলাকায় বাসচাপায় অটোরিকশার চারযাত্রী নিহত হয়েছেন। রোববার সন্ধ্যায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
  • রোববার   ২৩ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১০ ১৪২৮

  • || ১৮ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

সর্বশেষ:
অপরাধ দমনে নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে পুলিশ: প্রধানমন্ত্রী সততা ও নিষ্ঠার সাথে জনগণের সেবা নিশ্চিত করুন: রাষ্ট্রপতি আগামী ৫ বছরে বিশ্বের ৫০টি দেশে ডিজিটাল যন্ত্র রফতানি হবে দেশে শিল্পায়ন বাড়ানোর চেষ্টা চলছে: শিল্পমন্ত্রী কুড়িগ্রাম সদরে সোনালী ব্যাংক শাখার কর্মকর্তার মৃত্যু

খানসামায় আঙ্গারপাড়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে দুই ভাইয়ের লড়াই       

প্রকাশিত: ১৯ ডিসেম্বর ২০২১  

চতুর্থ ধাপের নির্বাচনে দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার আঙ্গারপাড়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে দুই ভাই নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন। ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ভোটারদের ধারে ধারে ঘুরছেন তারা।

নির্বাচনে সাবেক চেয়ারম্যান মো. আব্দুল জব্বার শাহ (আনারস) ও তার ছোট ভাই জমির উদ্দিন শাহ বালিকা মহাবিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শাহ মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন (মোটরসাইকেল) অংশ নিচ্ছেন। ২০১১ সালেও তারা ইউপি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন।

এছাড়া আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. গোলাম মোস্তফা আহমেদ শাহ্ (নৌকা), বিদ্রোহী প্রার্থী মো. আবুল কালাম আজাদও (ঘোড়া) নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন।

আঙ্গারপাড়ার এলাকার ভোটার কাদের আলী বলেন, দুই ভাই এর আগেও নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। সে সময় বড় ভাই জিতে যান। এবারও তারা প্রার্থী হয়েছেন। দেখা যাক কে জেতে?

সুমন আলী নামের আরেক ভোটার বলেন, দুই ভাইয়ের প্রার্থী হওয়া নিয়ে সমস্যায় পড়ে গেছি। বেশি করে তাদের পরিবারের আত্মীয়-স্বজন ও পাড়া প্রতিবেশীদের মধ্যে সমস্যা বেশি। তাদের বংশের সুনাম রয়েছে। কিন্তু দুই ভাইয়ের কারণে সে সুনাম নষ্টের দিকে।

চেয়ারম্যান প্রার্থী বড় ভাই আব্দুল জব্বার শাহ বলেন, বাবার মতো আমিও এলাকার মানুষের সুখে-দুঃখে পাশে ছিলাম এবং ভবিষ্যতেও থাকব। তাই আমি তিনবারের সফল চেয়ারম্যান।

তবে ছোট ভাই শাহ মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন বলেন, আগে একবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়েছিল। কিন্তু সে সময় আমি হেরে যাই। বড় ভাই চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে বাবা ও পরিবারের সম্মান নষ্ট করে দিয়েছেন। তাই আমি নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছি।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জিকরুল হক জানান, খানসামার আংগারপাড়া ইউনিয়নে চারজন চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ভোটগ্রহণের জন্য সবধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

এ ইউনিয়নে ২১ হাজার ৮৩০ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এর মধ্যে ১১ হাজার ৩৫ পুরুষ ও ১০ হাজার ৭৯৫ নারী ভোটার। এছাড়া উপজেলার ছয় ইউনিয়নে ৩৪ জন প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন।

– দিনাজপুর দর্পণ নিউজ ডেস্ক –