• মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪৩১

  • || ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪৫

খানসামায় হাতি দিয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে কারাদণ্ড 

প্রকাশিত: ১৭ এপ্রিল ২০২৪  

হাতি দিয়ে দিনাজপুরের খানসামায় চাঁদাবাজি করার দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতে দুই যুবককে ৬ মাস করে কারাদণ্ড দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ তাজ উদ্দিন। সাজাপ্রাপ্ত দুই যুবককে বুধবার জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এমন অভিযানে শাস্তি দেওয়ায় স্থানীয়রা স্বস্তি পেয়েছে।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, চাপাইনবাবগঞ্জের নাচোল উপজেলার কাজলা গ্রামের সাগর ইসলামের ছেলে আজিজুল হক (২১) ও শিবগঞ্জ উপজেলার হুদাবালা গ্রামের সুবহান আলীর ছেলে মোঃ ইয়াছিন ইসলাম (২০)।

মঙ্গলবার দিবাগত সন্ধ্যায় খানসামা ডিগ্রি কলেজের সামনে থেকে হাতিসহ দুই মাহুতকে আটক করে উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও বনবিভাগ। পরে আটক দুই মাহুতকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হলে সাজা প্রদান এবং হাতিটিকে অন্য এক মাহুতের জিম্মায় হস্তান্তর করে উপজেলা বন বিভাগ। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী বন সংরক্ষক নুরুন নাহার, অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোজাহারুল ইসলাম ও উপজেলা বন কর্মকর্তা মঞ্জুরুল কাদের।

জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে খানসামা উপজেলার বিভিন্ন সড়কে হাতিদের ব্যবহার করে পথচারীদের কাছে চাঁদা আদায় করে মাহুতরা। এতে জনগণ সংক্ষুব্ধ হয়। এই ক্ষুব্ধ নিরসনে সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে তাদের আটক করে। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে খানসামা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: তাজ উদ্দিন বলেন, জোরপূর্বক বন্যপ্রাণী ব্যবহার করে চাঁদাবাজি অমানবিক। এটি মেনে নেওয়া যায় না, তাই জনগণের নিরাপত্তার কথা বিবেচনায় নিয়ে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা আইন-২০১২ অনুযায়ী তাদের শাস্তি প্রদান করা হয়।

এ বিষয়ে খানসামা থানার ওসি মোজাহারুল ইসলাম বলেন, হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি করার অপরাধে সাজাপ্রাপ্ত দুই যুবককে বুধবার সকালে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। 

– দিনাজপুর দর্পণ নিউজ ডেস্ক –