• শনিবার   ১৬ অক্টোবর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ৩০ ১৪২৮

  • || ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
পূজামণ্ডপে অরাজকতা সৃষ্টির অপচেষ্টাকারীরা পার পাবে না- প্রধানমন্ত্রী ‘কোনো সুস্থ ধর্মপ্রাণ ব্যক্তি অন্য ধর্মে আঘাত করতে পারে না’ নির্বাচন সামনে রেখে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির মাথাচাড়া- কাদের মণ্ডপে মণ্ডপে বেজে উঠেছে বিদায়ের সুর কারিগরি ত্রুটির কারণে মোবাইল অপারেটরে ইন্টারনেট সেবা বিঘ্নিত

দুম্বার খামার গড়ে তুলে তাক লাগিয়েছেন বোচাগঞ্জের ব্যবসায়ী 

প্রকাশিত: ৭ জুলাই ২০২১  

দিনাজপুর জেলায় এই প্রথম শখের বশে মরু অঞ্চলের দুম্বা পালন করে বাণিজ্যিক খামার গড়ে তুলে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন বোচাগঞ্জের ব্যবসায়ী আব্দুল হান্নান। 

২০১৮ সালে ভারতের রাজস্থান থেকে ছয়টি দুম্বা এনে, লালন-পালন করা শুরু করেন দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলার সৌখিন খামারি ও চালকল ব্যবসায়ী আব্দুল হান্নান। এখন তার খামারে প্রায় অর্ধশত দুম্বা রয়েছে। দুম্বা সাধারণত মরু অঞ্চলের প্রাণী হলেও কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশেও লালন-পালন করা হচ্ছে এই প্রাণী। 

এবারই প্রথম কোরবানির হাটে এই দুম্বা বিক্রির জন্য উঠানো হবে। এরই মধ্যে দুম্বার খামারটি দেখতে দূর-দূরান্তের অনেকে ভিড় করছেন করোনার এই সময়ে দিনাজপুরে কোরবানির হাটে দেখা যাবে দুম্বা। এই নিয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেন বোচাগঞ্জ উপজেলার ধান-চাল ব্যবসায়ী ও দুম্বা খামারের মালিক আব্দুল হান্নান। 

তিনি আশা করেন, একেকটি দুম্বা ৭০ থেকে ৮০ হাজার টাকায় বিক্রি হবে। খামার পরিচর্যাকারী গোলাম রব্বানী জানান, সবুজ ঘাস, খড়, গম, ভুট্টাসহ স্বাভাবিক খাবার খেয়েই বেড়ে উঠছে দুম্বা গুলো। দুম্বা গুলি অত্যন্ত শান্ত প্রাণী। এরা সাধারণত ছাগলের মতো দলগত ভাবে থাকতে পছন্দ করে। খামারের সামনেই একটু খালি জায়গা রয়েছে। মাঝেমধ্যে খামারের বাইরে দুম্বাগুলি আনা হলেও বেশিক্ষণ বাহিরে রাখা হয় না। 

মরু অঞ্চলের দুম্বা দেখাতে আসা ফরিদ আহমেদ জানান, এই প্রথম স্ব চোখে দুম্বা দেখলাম। অনেক আনন্দ লাগছে। খামারে কাছে এসে দুম্বা দেখে মনে হয়েছে দুম্বগুলি অনেক শান্ত প্রাণী। দুম্বাগুলি কাউকে আক্রমণ করে না । দুম্বা দেখে নিজেও দুম্বার খামার করার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেন। 

দুম্বা খামারি স্থানীয় ব্যবসায়ী আব্দুল হান্নান জানান, ভারতে বেড়াতে গিয়ে দুম্বা দেখার পর শখের বশে মরু অঞ্চলের দুম্বাগুলো লালন-পালন করেছেন। পরবর্তী সময়ে এটির পরিধি বাড়িয়ে খামারে পরিণত করেছি। আসছে কোরবানির হাটে এই খামারের দুম্বা বিক্রির জন্য উঠানো হবে। ইচ্ছে করলে যে কেউ আমার খামারের দুম্বা কোরবানির জন্য ক্রয় করতে পারবেন। বর্তমানে তার খামারে দুম্বার সংখ্যা প্রায় অর্ধ-শতাধিক। 
মরু অঞ্চলের প্রাণী দুম্বা সঠিকভাবে পরিচর্যা করলে যেকোনো দেশে, যেকোনো জায়গায় খামার করে স্বাবলম্বী হওয়া সম্ভব। 

বোচাগঞ্জ উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আব্দুস ছালাম জানান, মরু অঞ্চলের এসব প্রাণী যেকোনো পরিবেশে সঠিক পরিচর্যার মাধ্যমে লালন-পালন করা যায়। অনেকেই এটাকে বাণিজ্যিকভাবে নিতে পারেন। বোচাগঞ্জের দুম্বার খামারটি অত্র এলাকার মানুষের কাছে একটি ব্যতিক্রমী খামার হিসেবে নজর কেড়েছে। 

দিনাজপুর জেলা প্রাণীসম্পদ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ড আনিকা আকবর তৃষা বলেন , সঠিকভাবে দুম্বার পরিচর্যা করে যে কোউ সফল দুম্বা খামারি হতে পারবেন। এই প্রথম জেলায় সৌখিন দুম্বা খামারি আব্দুল হান্নানকে সব সময় বিভিন্ন পরামর্শ দিচ্ছে প্রাণীসম্পদ বিভাগ। অনুকূল আবহাওয়া থাকায় দেশে দুম্বা পালনে ভালো সম্ভাবনার কথা জানান তিনি।

– দিনাজপুর দর্পণ নিউজ ডেস্ক –