ব্রেকিং:
রংপুর প্রেস ক্লাবের দ্বি-বার্ষিক (২০২১-২০২৩) নির্বাচনে সভাপতি পদে দৈনিক যুগান্তরের রংপুর ব্যুরো প্রধান মাহাবুব রহমান হাবু ও সাধারণ সম্পাদক পদে মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের স্টাফ রিপোর্টার রফিকুল ইসলাম সরকার বিজয়ী হয়েছেন।
  • সোমবার   ০২ আগস্ট ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ১৭ ১৪২৮

  • || ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

সর্বশেষ:
শোকাবহ আগস্ট: বাঙালির শোকের মাস শুরু পোশাক কারখানা খুলছে আজ, যে ১৫ শর্ত মানতে হবে মালিকদের গ্রামে আটকে পড়া পোশাক শ্রমিকদের চাকরি যাবে না গণটিকা কার্যক্রম সফল করতে সবাই টিকা নিন লালমনিরহাটে বাড়ি-বাড়ি গিয়ে খাদ্য সহায়তা বিতরণ

ধানের জেলা দিনাজপুরের বাজারে বাড়ছে ধানের দাম 

প্রকাশিত: ১৭ জুলাই ২০২১  

ধানের জেলা দিনাজপুরে বাজারে ধানের দাম বাড়ছে। সংগ্রহ অভিযান শুরুর দীর্ঘ দুই মাসে নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রার ৭৩ শতাংশ চাল ও ধান সংগ্রহ করতে পেরেছে খাদ্য বিভাগ।

দিনাজপুরের অন্যতম বৃহত্ ধানের হাট সদর উপজেলার গোপালগঞ্জে গিয়ে দেখা যায়, দুই সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি বস্তা (৭৫ কেজি) ধানের দাম বেড়েছে প্রকারভেদে ২৫০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত। দুই সপ্তাহ আগে হাইব্রিড মোটা জাতের ধান প্রতি বস্তা (৭৫ কেজি) ১ হাজার ৭০০ টাকা থেকে বেড়ে ১ হাজার ৯৫০ টাকায়, বিআর-২৮ জাতের ধান ২ হাজার টাকা থেকে বেড়ে ২ হাজার ২২০ টাকায় এবং সম্পা কাটারী জাতের ধান ২ হাজার ১০০ টাকা থেকে বেড়ে ২ হাজার ৬০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। চাহিদা থাকলেও বাজারে ধানের সরবরাহ কমে যাওয়ায় এই দাম বেড়েছে বলে জানান ধান ক্রেতারা।

বাজারে ধানের দামের এই ঊর্ধ্বগতিতে দিনাজপুর জেলায় সরকারি বোরো সংগ্রহ অভিযান পুরোপুরি সফল নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মিলমালিক জানান, যেভাবে ধানের দাম বাড়ছে, তাতে এই দামে ধান কিনে খাদ্য বিভাগের কাছে চাল সরবরাহ করতে লোকসান গুনতে হবে তাদের। এ জন্য খাদ্য বিভাগের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হলেও অনেক মিলমালিক পুরোপুরি চাল দিতে না পারায় এখন রয়েছে সংশয়ের মধ্যে।

দিনাজপুর জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক এস এম সাইফুল ইসলাম জানান, দিনাজপুর জেলায় চলতি বোরো মৌসুমে ৪০ টাকা কেজি দরে ৯১ হাজার ম্যাট্রিক টন সিদ্ধ চাল, ৩৯ টাকা কেজি দরে ৭ হাজার টন আতপ চাল এবং ২৭ টাকা কেজি দরে ২৪ হাজার টন ধান ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। চাল সংগ্রহের জন্য জেলার ১ হাজার ৮০০ মিলমালিক চুক্তিবদ্ধ হয় খাদ্য বিভাগের সঙ্গে। গত ৮ মে আনুষ্ঠানিকভাবে এই সংগ্রহ অভিযান শুরুর পর গত সোমবার পর্যন্ত ৯১ হাজার টনের স্থলে ৬৮ হাজার টন সিদ্ধ চাল, ৭ হাজার টনের মধ্যে ৩ হাজার টন আতপ চাল এবং ২৪ হাজার টনের মধ্যে ১৮ হাজার ৫০০ টন ধান সংগ্রহ করা হয়েছে। যা মোট লক্ষ্যমাত্রার ৭৩ শতাংশ। আগামী আগস্ট মাস পর্যন্ত এই সংগ্রহ অভিযান চলবে এবং এরই মধ্যে সংগ্রহ অভিযান পুরোপুরি সফল হবে বলে আশা করেন জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক।

– দিনাজপুর দর্পণ নিউজ ডেস্ক –