ব্রেকিং:
রংপুরের নবীগঞ্জ এলাকায় বাসচাপায় অটোরিকশার চারযাত্রী নিহত হয়েছেন। রোববার সন্ধ্যায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
  • রোববার   ২৩ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১০ ১৪২৮

  • || ১৮ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

সর্বশেষ:
অপরাধ দমনে নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে পুলিশ: প্রধানমন্ত্রী সততা ও নিষ্ঠার সাথে জনগণের সেবা নিশ্চিত করুন: রাষ্ট্রপতি আগামী ৫ বছরে বিশ্বের ৫০টি দেশে ডিজিটাল যন্ত্র রফতানি হবে দেশে শিল্পায়ন বাড়ানোর চেষ্টা চলছে: শিল্পমন্ত্রী কুড়িগ্রাম সদরে সোনালী ব্যাংক শাখার কর্মকর্তার মৃত্যু

নানামুখী সংকটে বিএনপি   

প্রকাশিত: ১৩ জানুয়ারি ২০২২  

২০০৬ সালে ক্ষমতা হারানোর পর থেকেই দুঃসময় শুরু হয় বিএনপির। এরই ধারাবাহিকতায় দলের শীর্ষ নেতাদের নানা ধরনের ব্যর্থতা ও সাংগঠনিক বিভক্তিতে বর্তমানে হারিয়ে যাওয়ার অবস্থায় এই দলটি।

প্রায় দেড় যুগ সময় পেরিয়ে গেলেও বিএনপির নানামুখী সংকট এখনো কাটেনি। এদিকে বিএনপি কিভাবে এ দুরবস্থা কাটিয়ে উঠবে, তাও কেউ বলতে পারছেন না। 

বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে বিএনপির সিনিয়র নেতারা চরম বিভক্তি, হতাশাগ্রস্ত ও বিভক্তিতে রয়েছেন। সম্প্রতি নানা কর্মকাণ্ডে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের নেতৃত্বের বিরোধিতাও প্রকাশ্য রূপ পেয়েছে, শঙ্কাও তৈরি হয়েছে দল ভাঙার। 

এসব পরিস্থিতিতে ২০২২ সালকে বিএনপির জন্য চরম ব্যর্থতা ও বিভেদের বছর হিসেবেই দেখছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

তাদের মতে, খালেদা জিয়ার মুক্তিতে দলীয় নেতাকর্মীরা চাঙা হলেও কয়েকদিনের মধ্যে তা ম্লান হয়ে যায়। কারণ, খোদ খালেদা জিয়াই এখন বিএনপির রাজনীতির প্রতি বিরক্ত। তাই তিনি দলকে এড়িয়ে চলছেন। এছাড়া মির্জা ফখরুলদের অতিরিক্ত তারেকপ্রীতি খালেদা জিয়াকে মনঃক্ষুণ্ন করেছে, যার কারণে হয়তো তিনি দলবিমুখ হয়ে পড়েছেন। দীর্ঘ প্রতীক্ষিত জাতীয় কাউন্সিল আয়োজনে খালেদা জিয়ার সব চেষ্টা ব্যর্থতায় পর্যবসিত হয়েছে। 

এছাড়া রাজপথের বদলে বিএনপির রাজনীতি স্কাইপি ও অনেকাংশে অনলাইনভিত্তিক হয়ে পড়ায় দলে ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। দীর্ঘ সমালোচনা সত্ত্বেও জামায়াতকে নিয়ে নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করেনি বিএনপি। পাশাপাশি ঐক্যফ্রন্টের কী হবে বা আগামীতে তা সক্রিয় থাকবে কিনা, এ নিয়েও সংশয় দেখা দিয়েছে।

এদিকে ২০ দলীয় জোটকে নিষ্ক্রিয় করে রাখা, জোট নেতাদের অবমূল্যায়ন, স্থানীয় নির্বাচনে জোটের ছোট ছোট দলগুলোকে এড়িয়ে একক প্রার্থিতা প্রদান- ইত্যাদি ইস্যুতে বিএনপি ২০২১ সালেও বিভক্ত ছিল, এর প্রভাব ২০২২ সালেও বিদ্যমান রয়েছে। 

এসব কারণে স্বতন্ত্র বা জোটগত কোনো অবস্থাতেই ভালো নেই বিএনপি। দলের শিবিরে হানা দিয়েছে শুধুই দুর্দশা। তৃণমূল থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত বিভক্তি ও দ্বন্দ্ব প্রায় আক্রমণাত্মক পর্যায়ে পৌঁছেছে। এমনকি খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের কঠোর সমালোচনা করতেও দ্বিধা করছেন না সিনিয়র নেতারা। 

সব মিলিয়ে চরম দুঃসময় পার করছে বিএনপি। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরাই নন, বিএনপির শীর্ষ অনেক নেতাই মনে করেন, বিএনপির রাজনীতির এসব নানামুখী সংকট খুব শিগগিরই কাটছে না। বরং দিনের পর দিন তা আরো ঘনীভূত হবে। এ সংকট থেকে মুক্তির টোটকাও জানা নেই।

– দিনাজপুর দর্পণ নিউজ ডেস্ক –