ব্রেকিং:
রংপুর প্রেস ক্লাবের দ্বি-বার্ষিক (২০২১-২০২৩) নির্বাচনে সভাপতি পদে দৈনিক যুগান্তরের রংপুর ব্যুরো প্রধান মাহাবুব রহমান হাবু ও সাধারণ সম্পাদক পদে মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের স্টাফ রিপোর্টার রফিকুল ইসলাম সরকার বিজয়ী হয়েছেন।
  • সোমবার   ০২ আগস্ট ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ১৭ ১৪২৮

  • || ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

সর্বশেষ:
শোকাবহ আগস্ট: বাঙালির শোকের মাস শুরু পোশাক কারখানা খুলছে আজ, যে ১৫ শর্ত মানতে হবে মালিকদের গ্রামে আটকে পড়া পোশাক শ্রমিকদের চাকরি যাবে না গণটিকা কার্যক্রম সফল করতে সবাই টিকা নিন লালমনিরহাটে বাড়ি-বাড়ি গিয়ে খাদ্য সহায়তা বিতরণ

নানা জাতের রসালো আনারসে সয়লাব দিনাজপুরের বাজার 

প্রকাশিত: ৩০ জুন ২০২১  

পাহাড়ি এলাকার টসটসে রসালো আনারস এখন দিনাজপুরের বিভিন্ন বাজারে সয়লাব। ব্যাপক চাহিদা থাকায় এ অঞ্চলে মৌসুমি ফলের বাজার দখল করেছে এই আনারস। তবে বৃহস্পতিবার থেকে দেশব্যাপী লকডাউনের খবরে দাম বেড়েছে।

নানা জাতের আনারস দেশের বিভিন্ন পাহাড়ি এলাকার হলেও সিলেটের শ্রীমঙ্গলের জলডুঙ্গী ও টাঙ্গাইলের মধুপুরের কেলেন্ডার জাতের আনারস খেতে স্বাদ বেশি, মিষ্টি ও ঘ্রাণের দিক থেকেও অদ্বিতীয়। তাই এর চাহিদা দিনাজপুরে বেশি। জ্যৈষ্ঠ মাসের শুরু থেকেই শ্রীমঙ্গলের এই আনারস আসতে শুরু করে আষাঢ় মাস পর্যন্ত পাওয়া যায় এখানকার বাজারে।

ফুলবাড়ী বাজারের ফল ব্যবসায়ী সাদেক আলীসহ কয়েক ব্যবসায়ী জানায়, অন্যান্য জাতের আনারস জোড়া হিসেবে বিক্রি হলেও শ্রীমঙ্গলের আনারস ওজনে বিক্রি হয়। বুধবার প্রতি কেজি আনারস বিক্রি হয় ৬০-৮০ টাকা কেজি পর্যন্ত। এর পাশাপাশি বাজারে এসেছে টাঙ্গাইলের মধুপুরের কেলেন্ডার জাতের আনারস। এ জাতের আনারস প্রতি জোড়া বিক্রি হয় ৮০-১০০ টাকা।

কিনতে আসা দিলশাদ হোসেন বলেন, করোনার কারণে বাইরে বের হওয়া অনেকটাই ঝুঁকিপূর্ণ। কিন্তু চিকিৎসকরা বলছেন, এসময় পুষ্টি জাতীয় খাবার খেতে। তাই ফল কিনতে এসেছি। আরেক ক্রেতা রাহাদ গাজী বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে প্রতিদিন অন্যান্য খাবারের সাথে কিছু ফল খাওয়া প্রয়োজন।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, আগে রাতদিন ফল বেচাকেনা হলেও করোনার কারণে বর্তমানে সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত ফল বিক্রি করতে পারছেন বলে জানায় ব্যবসায়ীরা। বেশি সরবরাহ থাকলে দাম কম থাকে। যেহেতু ফলটা অন্য এলাকা থেকে আসার ওপর নির্ভর করে। তবে বাজারে প্রচুর আনারস আছে।

– দিনাজপুর দর্পণ নিউজ ডেস্ক –