• সোমবার ১১ ডিসেম্বর ২০২৩ ||

  • অগ্রহায়ণ ২৬ ১৪৩০

  • || ২৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৫

বিরামপুরে দুর্বৃত্তের বিষে মারা গেলো ৫ পুকুরের ৪০ লাখ টাকার মাছ

প্রকাশিত: ১১ নভেম্বর ২০২৩  

 
দিনাজপুরের বিরামপুরের পাঁচটি পুকুরে বিষ (গ্যাস ট্যাবলেট) দিয়ে মাছ নিধনের অভিযোগ উঠেছে দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে। শনিবার (১১ নভেম্বর) ভোরের দিকে উপজেলার জোতবানি ইউনিয়নের একইর গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। পুকুরগুলোর মালিক মাহমুদুল হাসান রিফাত চৌধুরীর দাবি, তার ৪০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পুকুরগুলোর পানিতে বড় বড় মরা মাছ ভাসছে। এলাকার নারী ও শিশুরা পুকুরে নেমে মাছ সংগ্রহ করছে। জেলেরা পুকুরগুলো থেকে বেঁচে যাওয়া মাছ ধরার জন্য জাল ফেলেছেন।

পুকুরগুলোর পাহারাদার জাফর জানান, প্রতি রাতের মতো গতকাল রাতেও পুকুর পাহারা দেই। মাঝখানে ঘুমিয়ে পড়ি। ভোরবেলা ঘুম থেকে উঠে মাছগুলো মরা অবস্থায় পুকুরের পানিতে ভাসতে দেখি। পরে বিষয়টি পুকুরের ম্যানেজার ও মালিককে অবগত করি।

ক্ষতিগ্রস্ত মাছ চাষি মাহমুদুল হাসান রিফাত চৌধুরীর বলেন, আমার পাঁচটি পুকুর রয়েছে। পুকুরগুলোর আয়তন বেশ বড়। কয়েক বছর ধরে প্রায় চল্লিশ লাখ টাকার মাছ চাষ করেছি। পুকুরে কয়েক প্রকার মাছ ছিল। একেকটি মাছ তিন কেজির বেশি হবে। আর কয়েকদিন পর মাছগুলো বাজারে বিক্রি করতাম। কিন্তু আজ ভোরে কে বা কারা গ্যাস ট্যাবলেট দিয়ে পুকুরের সব মাছ মেরে ফেলেছে। এখন আমার পথে বসতে হবে।

স্থানীয় জোতবানি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক বলেন, রিফাত চৌধুরী সুনামের সঙ্গে কয়েক বছর ধরে মাছ চাষ করছেন। রাতের অন্ধকারে তার পুকুরগুলোতে কে বা কারা গ্যাস ট্যাবলেট দিয়ে মাছ নিধন করেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। বিষয়টি তদন্ত করে দোষী ব্যক্তিদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।

বিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুব্রত কুমার সরকার জানান, গ্যাস ট্যাবলেট দিয়ে পুকুরের মাছ নিধনের ব্যাপারে এখনো কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

– দিনাজপুর দর্পণ নিউজ ডেস্ক –