ব্রেকিং:
দিনাজপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪ জন ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৩৩৯ জনে। বৃহস্পতিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ।
  • বৃহস্পতিবার   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ৯ ১৪২৭

  • || ০৬ সফর ১৪৪২

সর্বশেষ:
আমরা শক্তিশালী বৈশ্বিক অংশীদারিত্বের অপেক্ষায়- প্রধানমন্ত্রী সব মাধ্যমিক স্কুলে হবে ডিজিটাল একাডেমি- প্রধানমন্ত্রী করোনাকালে রপ্তানির সম্ভাবনা বাড়ছে ইউরোপে ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচিতে প্রশিক্ষণ নিয়েছে ২২ লাখের বেশি মানুষ আবাসন শিল্পে সম্ভাবনার দুয়ার খুলে দিয়েছে পদ্মা সেতু
৬৭

বীরগঞ্জে নিয়ম-নীতি উপেক্ষা করে যত্রতত্র বিক্রি হচ্ছে এলপি গ্যাস 

প্রকাশিত: ৯ সেপ্টেম্বর ২০২০  

দিনাজপুরের বীরগঞ্জ নিয়ম-নীতি উপেক্ষা করে যত্রতত্র বিক্রি হচ্ছে এলপি গ্যাস সিলিন্ডার, পেট্রোল ও জ্বালানি তেল। অধিকাংশ বিক্রেতার নেই কোনো বিস্ফোরক লাইসেন্স। চাল,ইলেকট্রিক, মোবাইল, হার্ডওয়্যার, পান বিড়ি, মুদি দোকানসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং আবাসিক এলাকায় এলপি গ্যাস সিলিন্ডার মজুদ করে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন নির্বিঘ্নে। আর রাস্তার পাশে টেবিলে রেখে বিক্রি হচ্ছে পেট্রোল - ডিজেল।  

বর্তমানে ব্যবসাটি ছড়িয়ে পড়েছে বীরগঞ্জ উপজেলার শিবরামপুর, পলাশবাড়ী,শতগ্রাম,পাল্টাপুর,সুজালপুর, নিজপাড়া, মোহাম্মদপুর ভোগনগর, সাতোর, মোহনপুর, মরিচা ইউনিয়নসহ বিভিন্ন গ্রামগঞ্জে। অথচ নিয়ম অনুযায়ী এলপি গ্যাস ব্যবহার, বিপণন ও বাজারজাত করতে হলে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসায়ীকে বিস্ফোরক অধিদফতরের লাইসেন্স ও অগ্নিনিবারক গ্যাস সিলিন্ডার বাধ্যতামুলক সংরক্ষণ করার কথা। কিন্তু উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজারে প্রায় ব্যবসায়ীর এলপি গ্যাস বিক্রির বৈধ লাইসেন্স নেই। বীরগঞ্জ উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের প্রতিটি হাটবাজারসহ উপজেলা সদর ও পৌরসভা সদরে যত্রতত্র এলপি গ্যাস সিলিন্ডার, পেট্রোল ও ডিজেল বিক্রি হচ্ছে। এমনকি সেলুন, মুদি দোকান, প্ল্যাষ্টিক সামগ্রী, কসমেটিক, জুতার দোকান ও  ফার্নিচারের দোকানও বিক্রি হচ্ছে এসব।

জানা গেছে, উপজেলার অধিকাংশ দোকানির এলপি গ্যাস বিক্রির অনুমোদন নেই। অনেক দোকানে  নিন্মমানের পুরাতন সিলিন্ডারের এলপি গ্যাস বিক্রি হতে দেখা গেছে পাশাপাশি  গ্যাস পেট্রোল ও ডিজেল বিক্রেতাদের অধিকাংশ দোকানে নেই কোনো মূল্য তালিকা । দোকানদারা ইচ্ছেমতো বিক্রি করছেন এসব পণ্য। নিয়ম অনুযায়ী গ্যাস বিক্রি করতে হলে ফায়ার সার্ভিস ও জ্বালানি অধিদফতরের লাইসেন্স এবং পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র নিতে হয়। কিন্তু বীরগঞ্জ উপজেলায় অনেকেই তা না মেনে লাইসেন্স ছাড়াই অবৈধভাবে চালিয়ে যাচ্ছে ব্যবসা।

– দিনাজপুর দর্পণ নিউজ ডেস্ক –
দিনাজপুর বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর