• বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৩০ ১৪৩১

  • || ০৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

মুক্তিপণ দিয়ে ছাড়া পেলেন অপহৃত যুবক মজিদুল

প্রকাশিত: ১৯ মে ২০২৩  

লালমনিরহাটে অপহরণের ৫ ঘণ্টা পর দেড়লাখ টাকা মুক্তিপণ দিয়ে ছাড়া পেয়েছেন অপহৃত মজিদুল নামে এক যুবক। এ ঘটনায় ছয়জনের নাম উল্লেখ করে সদর থানায় একটি অপহরণ মামলা করেছেন মুক্তিপ্রাপ্ত মজিদুল।

বৃহস্পতিবার বিকেলে সদর থানার ওসি এরশাদুল আলম অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এর আগে মুক্তিপণের টাকা পেয়ে বুধবার (১৭ মে) রাত ১টার দিকে তাকে ছেড়ে দেন অপহরণকারীরা।

মুক্তি পাওয়া যুবক মজিদুল ইসলাম লালমনিরহাট সদর উপজেলার হারাটি ইউনিয়নের হিরামানিক গ্রামের মৃত আহের আলীর ছেলে।

জানা যায়, হারাটি ইউনিয়নের ওকড়াবাড়ি বাজার থেকে রাত ১০টার দিকে মজিদুল তার বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় বাজার পার হয়ে কিছুদূর যেতেই মজিদুল অপহরণের শিকার হন। প্রায় ৫ ঘণ্টা পর রাত ১টার দিকে মজিদুলকে দেড়লাখ টাকা মুক্তিপণে ছেড়ে দেওয়া হয়।

অপহৃত যুবক মজিদুল জানান, তিনি দেনার জন্য নিজের চার শতক জম ১ লাখ ৪০ হাজার টাকায় বিক্রয় করেন। সেই টাকা পাওনাদারদের দেওয়ার জন্য রাত ১০টার দিকে তার বাড়ির পাশে ওকড়াবাড়ি বাজারে তাদের ডাকেন। পাওনাদারদের টাকা দিতে যাওয়ার পথেই স্থানীয় সোহাইব ইসলাম শিমুল নামে এক ব্যক্তি তাকে মোটরসাইকেলে তুলে কাজির চওড়া স্কুলের পেছনে নিয়ে যান। সেখানে আগে থেকেই আরো ৬-৭ জন অপহরণকারী উপস্থিত ছিলেন।

তারা মজিদুলের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ও মাথায় আঘাত করে তার থেকে ১ লাখ ৪০ হাজার ছিনিয়ে নেন। পরে মজিদুলের মাকে ফোন দিয়ে বলেন, ছেলেকে ফিরে পেতে হলে লোক পাঠিয়ে দিচ্ছি তার হাতে মোটরসাইকেলটি দিয়ে দেন। কিছুক্ষণ পর বাড়ি থেকে গাড়িটি এনে তাদের লোকের কাছেই ১০ হাজার টাকায় বিক্রি করেন। তারপর গভীর রাতে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। তিনি অপহরণকারীদের ৩-৪ জনকে চিনতে পেরেছেন। তাই তাদের নাম উল্লেখ করে থানায় একটি অভিযোগ দেন।

লালমনিরহাট সদর থানার ওসি এরশাদুল আলম জানান, অপহরণের ঘটনায় অপহৃত যুবক একটি অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগ পাওয়ার পর পরই ঘটনাস্থলে তদন্তের জন্য অফিসার পাঠানো হয়েছে। তদন্ত শেষ হলেই আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

– দিনাজপুর দর্পণ নিউজ ডেস্ক –