• বুধবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৭

  • || ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
‘সরকার পার্বত্য চট্টগ্রামসহ দেশের শান্তি বজায় রাখতে বদ্ধপরিকর’ কুড়িগ্রামে ট্রলিচাপায় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নিহত ছদ্মবেশে সরকারি অফিস থেকে দালাল ধরলেন ম্যাজিস্ট্রেট ভঙ্গুর সাংগঠনিক অবস্থার কারণে নিশ্চিহ্নের পথে বিএনপি চীনা বা ভারতীয় ঋণের ফাঁদের গল্প তথ্যভিত্তিক নয়- পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে সংসদের বিশেষ অধিবেশন আজ

প্রকাশিত: ৮ নভেম্বর ২০২০  

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ ‘মুজিববর্ষ’ উপলক্ষ্যে আজ রবিবার সন্ধ্যা ৬টায় শুরু হচ্ছে জাতীয় সংসদের বিশেষ অধিবেশন। দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বিশেষ অধিবেশনে বসতে যাচ্ছে সংসদ। বঙ্গবন্ধুর জীবদ্দশায় সংসদের দুটি বিশেষ বৈঠক বসলেও এটাই হবে প্রথম বিশেষ অধিবেশন।

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সাংবিধানিক ক্ষমতাবলে গত ২১ অক্টোবর একাদশ জাতীয় সংসদের এই দশম অধিবেশনটি আহ্বান করেন। ২০২০ সালের পঞ্চম এ অধিবেশনটিকে মুজিববর্ষের বিশেষ অধিবেশন হিসেবে আহ্বান করেছেন রাষ্ট্রপতি।এর আগে ১৯৭৪ সালের ৩১ জানুয়ারি ও ১৮ জুন সংসদে যে বিশেষ বৈঠক বসেছিল, সেখানে যুগোস্লাভিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট মার্শাল টিটো এবং ভারতের রাষ্ট্রপতি বরাহগিরি ভেংকট গিরি ভাষণ দিয়েছিলেন।


অধিবেশনের প্রথম দিনের বৈঠকটি চলবে সাধারণ অধিবেশনের আদলেই। ঐদিন অধিবেশনের শুরুতে সভাপতিমণ্ডলী মনোনয়ন এবং শোক প্রস্তাব উত্থাপন ও গ্রহণ করা হবে। এর মধ্যে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধন করে ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি বাড়িয়ে মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে জারি করা অধ্যাদেশটি আইনে পরিণত করার লক্ষ্যে অধিবেশনের প্রথম বৈঠকে উপস্থাপন করা হবে। সংসদ অধিবেশন না থাকাকালে অধ্যাদেশ জারির পর সংসদের প্রথম বৈঠকে সেটি উপস্থাপনের সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

বিশেষ অধিবেশনের মূল পর্ব শুরু হবে সোমবার। এদিন সন্ধ্যায় সংসদে স্মারক বক্তব্য রাখবেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। সংসদ সচিবালয় সূত্রে জানা গেছে, রাষ্ট্রপতির ভাষণের আগে স্বদেশে প্রত্যাবর্তনের পর বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক সেই ২০ মিনিটের ভাষণটি প্রচার করা হবে। রাষ্ট্রপতিও ভাষণটি শুনবেন। রাষ্ট্রপতির ভাষণের পর বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন নিয়ে একটি প্রস্তাব আনা হবে। ঐ প্রস্তাবের ওপর দীর্ঘ আলোচনা শেষে তা পাশ করা হবে। বিশেষ অধিবেশনটি চার কার্যদিবস চলতে পারে।

সংসদ কক্ষে স্পিকার যেখানে বসেন, তার পেছনে উপযুক্ত জায়গায় জাতির জনকের প্রতিকৃতি মর্যাদার সঙ্গে প্রদর্শন ও সংরক্ষণ করার জন্য ইতিমধ্যে আদেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। আগস্টে হাইকোর্টের দেওয়া ঐ আদেশের কপি পাওয়ার পরপরই অধিবেশন কক্ষে ছবি টাঙিয়েছে সংসদ কর্তৃপক্ষ। তবে এরমধ্যে সংসদের অধিবেশন হয়নি। বিশেষ অধিবেশনই হবে প্রথম অধিবেশন, যেখানে সংসদ কক্ষে বঙ্গবন্ধুর ছবি থাকবে। এর মাধ্যমে সংসদ সদস্যরাও প্রথমবারের মতো অধিবেশন কক্ষে জাতির পিতার ছবি দেখবেন।

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, করোনার মধ্যেও সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারণে ইতিমধ্যে আমরা তিনটি অধিবেশন সম্পন্ন করেছি। একইভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিশেষ অধিবেশনটি বসবে। রাষ্ট্রপতি যেদিন সংসদে ভাষণ দেবেন সেদিন আগ্রহী সব সংসদ সদস্য অধিবেশনে যোগ দিতে পারবেন। তবে সংসদে যোগ দিতে হলে কোভিড-১৯-এর হালনাগাদ পরীক্ষার ফল নেগেটিভ হতে হবে।

এদিকে, মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে ১০টি কর্মসূচি নিয়েছে জাতীয় সংসদ। এরমধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত সারা দেশে ১ কোটি বৃক্ষের চারা রোপণ কর্মসূচির অংশ হিসেবে সংসদ সদস্যরাও পালাক্রমে সংসদ ভবন চত্বরে বৃক্ষ রোপণ করছেন। এছাড়া চলতি মাসে মুজিববর্ষের ওয়েবসাইট উদ্বোধন, স্মারক ডাকটিকিট উন্মোচন, ৪ নভেম্বর সংবিধান দিবস উদ্যাপন, মাসব্যাপী আলোকচিত্র ও প্রামাণ্য দলিল প্রদর্শনী, ‘সংসদে বঙ্গবন্ধু’ বইয়ের প্রকাশনা অনুষ্ঠান, শিশুমেলাসহ বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে সংসদ সচিবালয়।

– দিনাজপুর দর্পণ নিউজ ডেস্ক –