ব্রেকিং:
নারীর ক্ষমতায়নে দেশের অর্থনীতি এগিয়ে যাচ্ছে: ডেপুটি স্পিকার অর্থনৈতিক কূটনীতির প্রতি বিশেষ গুরুত্ব প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক কূটনীতির প্রতি বিশেষ গুরুত্ব প্রধানমন্ত্রীর কুড়িগ্রামে নদী ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করলেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী লালমনিরহাটে দরিদ্রদের চোখের চিকিৎসায় এগিয়ে এলেন মন্ত্রীপুত্র নীলফামারীতে ইমামদের নিয়ে পাঁচদিন ব্যাপী রিফ্রেসার্স প্রশিক্ষণ
  • শনিবার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ১০ ১৪২৭

  • || ০৮ সফর ১৪৪২

সর্বশেষ:
জাতিসংঘে বাংলা: সেই ঐতিহাসিক দিন আজ পৃথিবীকে রক্ষায় জাতিসংঘে পাঁচ দফা প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর নিরাপদ নৌপথ নিশ্চিতে সমন্বিতভাবে কাজ করার আহ্বান নৌপ্রতিমন্ত্রীর আমরা চাই মেধা নির্ভর ডিজিটাল অর্থনীতির দেশ- নীলফামারীতে পলক সৈয়দপুরে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেফতার

সামাজিক মর্যাদা নিশ্চিতে ফ্রিল্যান্সারদের পরিচয়পত্র দেবে সরকার   

প্রকাশিত: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০  

সামাজিক মর্যাদা নিশ্চিত করতেই ফ্রিল্যান্সারদের পরিচয়পত্র দিতে চায় সরকার। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক জানিয়েছেন, শিগগিরই ফ্রিল্যান্সারদের একটি ডাটাবেজ তৈরি করা হবে। তবে আইডি কার্ড দেয়ার ক্ষেত্রে দক্ষ ও যোগ্যদের অগ্রাধিকার দেয়ার দাবি ফ্রিল্যান্সারদের। 

তবে রাষ্ট্রের এ সিদ্ধান্তে নানা ধরনের প্রতিক্রিয়া আছে ফ্রিল্যান্সারদের মাঝে। তারা বলছেন, ক্রেডিবিলিটি ছাড়া আইডি কার্ড ফ্রিল্যান্সারদের খুব একটা কাজে আসবে না।

ফ্রিল্যান্সার ফাহিম, রাকিব ও আরিফ জানান, ‘ফ্রিল্যান্সিংয়ে সহযোগিতার জন্য কিছু প্রতিষ্ঠান আছে, সেগুলোতে গিয়ে যদি এটি কার্যকর না হয় কিংবা সহায়তা না পাওয়া যায়, তাহলে এই কার্ড কোন কাজে আসবে না।’

কেউ যাতে কোন রকম এ্যাকাউন্ট খুলে নিজেদের ফ্রিল্যান্সার বলে দাবি করতে না পারেন সে বিষয়গুলো খেয়াল রাখার দাবি জানান তারা। 

তবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলছেন, ‘এই কার্ড ব্যবহার করে ব্যাংক লোনসহ অর্থনৈতিক সুযোগ সুবিধা নিতে পারবে ফ্রিল্যান্সাররা। পাশাপাশি সামাজিক মর্যাদা নিশ্চিত করার জন্যই একটি পরিচয় পত্র দেয়ার ব্যবস্থা করছে সরকার।’

আর বেসিসিসের সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির বলেন, ‘এটা আসলে কোন আইন না। এমনকি এ সংক্রান্ত কোন নীতিমালাও করা হচ্ছে না। সরকার থেকে শুধু একটা ডাটাবেশ তৈরি করা হচ্ছে। কেউ যদি পরিচয়পত্র না নিতে চায়, তাহলে জোর করা হবে না।’

অনলাইন বিভিন্ন প্লাটফর্ম ও মার্কেটপ্লেসে কাজ করছেন দেশের প্রায় সাড়ে ছয় লাখ ফ্রিল্যান্সার। যদিও তাদের কোনো ডাটাবেজ নেই। তাই বাস্তবের সঙ্গে এ সংখ্যার হেরফের থাকতে পারে। স্বীকৃতি না থাকায় সামাজিকভাবে হেয় হওয়ার পাশাপাশি ব্যাংক লোনসহ নানা সুবিধা থেকে বঞ্চিত কয়েক লাখ রেমিটেন্স যোদ্ধা।

তাই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

 

– দিনাজপুর দর্পণ নিউজ ডেস্ক –
জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর