ব্রেকিং:
যাবজ্জীবন কারাদণ্ড মানে আমৃত্যু কারাবাস- আপিল বিভাগের এমন রায় ‘অসামঞ্জস্যপূর্ণ’ দাবি করে আসামি পক্ষের পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদনের রায় ঘোষণা করা হয়েছে। রায়ে যাবজ্জীবন মানে আমৃত্যু কারাবাস রেখেই আপিল বিভাগ এই চূড়ান্ত রায় ঘোষণা করেন। তবে প্রেক্ষাপট বিবেচনায় আদালত চাইলে ৩০ বছর কারাদণ্ড দিতে পারেন।
  • বুধবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৭

  • || ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
মহান বিজয়ের মাস শুরু ‘মৌলবাদীদের হাতে ভাস্কর্য থাকা না থাকার ইজারা দেয়নি জনগণ’ বিজয়ের মাসে অপশক্তির আস্ফালন রুখতেই হবে রাজনীতিতে ক্রমেই দুর্বল হয়ে পড়ছে বিএনপি আপিল বিভাগের চূড়ান্ত রায়, যাবজ্জীবন মানে আমৃত্যু কারাবাস

সৈয়দপুরে ভেজাল সার কারখানা ও হোটেলকে ৬০ হাজার টাকা জরিমানা

প্রকাশিত: ২৬ অক্টোবর ২০২০  

নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলায় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের এক অভিযানে একটি ভেজাল সার কারখানা এবং দুইটি হোটেল মালিকের ৬০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। রবিবার বিকাল ৪টায় শহরের বিসিক শিল্প নগরীর সামনে নিয়ামতপুর এলাকায় এবং শহরের উপকন্ঠে চৌমুহনীবাজারে ওই অভিযান পরিচালনা করা হয়।

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের রংপুর বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারি পরিচালক (এডি) এবং নীলফামারী জেলা অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারি পরিচালক (এডি) মো. রোবহান উদ্দিনের নেতৃত্বে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। 

এ সময় সেখানে তিস্তা ক্রপ কেয়ার নামের একটি ভেজাল সার কারখানার সন্ধান পাওয়া যায়। ওই ভেজাল সার কারখানায় পোড়া মাটি দিয়ে জিমসাম সার তৈরি করে তিস্তা ক্রয় কেয়ার নামের প্যাকেটজাত করা হচ্ছিল। এ সব সারের প্যাকেটে জিপসামের সারের কোন রকম উপাদানের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। 

ভেজাল উপকরণ ব্যবহার করে জিপসাম সার তৈরি করে প্যাকেটজাত করে বাজারজাত করার দায়ে কারখানা মালিকের ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়াও সৈয়দপুর শহরের উপকন্ঠে চৌমুহনী বাজারের অপরিস্কার, নোংরা ও অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাবার তৈরি, সংরক্ষণ, পরিবেশনের অভিযোগে তৃপ্তি ও মুন্না হোটেলে মালিক যথাক্রমে মো. ফরিদুল ও ফরহাদের পাঁচ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।

অভিযানে সৈয়দপুর উপজেলা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর ও নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক মো. অহিদুল হক ও পৌর স্যানিটারী ইন্সপেক্টর মো. আলতাফ হোসেন সরকার এবং র‌্যাব- ১৩, নীলফামারী সিপিসি- ২ ক্যাম্পের সদস্যরা সহযোগিতা করেন।

– দিনাজপুর দর্পণ নিউজ ডেস্ক –